নতুন ফোন কেনার আগে যা জানা জরুরি Newsleve.com

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই? আশা করি সকলে ভালো আছেন ইলেকট্রনিক জিনিস মানেই টেনশন এর বিষয়।। কারণ এর স্থায়িত্বের কোন নিয়ন্ত্রণ নেই তেমন স্মার্টফোনেও।ও। তবে স্মার্টফোন কেনার আগে আর কিছু বিষয় কেয়ার করে কিনলে হয়তো বা প্রত্যাশিতভাবে ফোনটি আপনি ব্যবহার করতে পারবেন।এ জন্য  অনেকেই ফোন কেনার আগে অনেক ব্যাপারেই খোজখবর ফোন কেনার আগে এর খুঁটিনাটি বিষয়গুলো পরখ করে নিলে  ঠকার সম্ভাবনা কম থাকে এবং ভালো ফল পাওয়া যায়।

১.প্রথমে বিষয়টি হচ্ছে আপনার বাজেট অর্থাৎ দাম এমনিতেই যে মোবাইল দাম বেশি সে সেটের সবকিছুই তো ভালো হবে। তবে মোবাইল ফোন কেনার আগে একই মডেলের অন্য কোন সংস্করণ খুব শিঘ্রই বাজারে আসলে তা থেকে কোন সুবিধা পান কিনা তা কেনার আগে লাগে তা অবশ্যই ভেবে নেবেন

২.দ্বিতীয় বিষয়টি যে ডিসপ্লে সাইজ। অনেকেই মোবাইল ফোন কেনার আগে বিভিন্ন ধরনের পোষণ করে থাকে মোবাইলের ডিসপ্লে নিয়ে ডিসপ্লের ক্ষেত্রে একটি বড় ধরনের ডিসপ্লে বেছে নেওয়াই ভালো কেননা অনেক হয়তো মোবাইলে মুভি গেম খেলতে বড় ডিসপ্লেতে সুবিধা পেয়ে থাকেন। আজকালকার বাজারে অনেক ধরনের ডিসপ্লে পাওয়া যায় যেমন FTF  display IPS LCD super amoled । বিভিন্ন ডিসপ্লে বিভিন্ন কনফিগারেশন হয়ে থাকে তার মধ্যে হাই রেজুলেশনের ডিসপ্লে হলো এমোলেড ডিসপ্লে তো সেটা আপনার বাজেট অনুযায়ী নির্ভর করবে

৩. বিষয়টি হচ্ছে ফোনের প্রসেসর যেটা হচ্ছে একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস কেননা মোবাইলের সম্পূর্ণ প্রসেসিং করে থাকে মোবাইলের প্রসেসর আজকালকার বাজারে বিভিন্ন ধরনের প্রসেসর পাওয়া যায় যেমন স্ন্যাপড্রাগন মিডিয়াটেক।। একটি স্মার্ট ফোনের প্রসেসর যত শক্তিশালী হবে মোবাইল  এর  ক্ষমতা তত বেশি হবে।। তাই আমার মতে স্নাপড্রাগণ 885 খুব ভালো হয় যদি আপনার বাজেট একটু বেশি হয়ে থাকে

৪.তারপর যে বিষয়টি আসছে সেটা হচ্ছে ফোনের ব্যাটারি।আজকালকার বাজারে বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন ফোনে বিভিন্ন ব্যাটারি দিয়ে থাকে,ফোনের শক্তিশালী ব্যাটারি যে ফোনের দরকারি জিনিস তা আমরা জানি আর এর সঙ্গে এখন ফোনের ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তির সঙ্গে ওয়ারলেস চার্জিং প্রযুক্তি ফোনের বড় আর শক্তিশালী ব্যাটারি গুলিকে চার্জ করার সময় কম নেয়। আর এর জন্য ফোনের ব্যাটারি সঙ্গক্রান্ত ঝামেলাও কম হয়.

৫.ক্যামেরাএখন আমরা ফোন কেনার আগে দেখেনেই ক্যামেরা টা কেমন।আসলে ক্যামেরা কেমন হবে তা নির্বর করে তার রেজুলেশন এর উপর তাই ফোন কেনার আগে যদিফোনে ক্যামেরা নিয়ে অনেক ধরনের কথা বলতে চাই তাই ক্যামেরা কনফিগারেশন মোটামুটি পিছনের ক্যামেরা থার্টিন মেগাপিক্সেলের এবং সামনের ক্যামেরা হিসেবে এইট মেগাপিক্সেল নিজেই যথেষ্ট। তারপর আপনার বাজেট যদি বেশি হয়ে থাকে তাহলে আপনি ক্যামেরা কনফিগারেশন ভাল পাবেন

তো বন্ধুরা মোটামুটি উপরের বিষয়গুলো দেখেশুনে একটি মোবাইল ফোন কিনলে আশা করছি আপনি ভালো ধরনের একটা ধারণা পেয়ে যাবেন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে এটা আপনার নিজের উপর ডিপেন্ড করে।

আজকে পর্যন্তই আবার কথা হবে অন্য কোন সময় অন্য কোন বিষয় নিয়ে ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন আল্লাহাফেজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *